মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C
পাতা

ভাষা ও সংস্কৃতি

বন্দর উপজেলার ভূ-প্রকৃতি ও ভৌগলিক অবস্থান এই উপজেলার মানুষের ভাষা ও সংস্কৃতি গঠনে ভূমিকা রেখেছে। এখানে ভাষার মূল বৈশিষ্ট্য বাংলাদেশের অন্যান্য উপজেলার মতই, তবুও কিছুটা বৈচিত্র্য খুঁজে পাওয়া যায়। যেমন কথ্য ভাষায় মহাপ্রাণধ্বনি অনেকাংশে অনুপস্থিত, অর্থাৎ ভাষা সহজীকরণের প্রবণতা রয়েছে। বন্দর উপজেলার আঞ্চলিক ভাষার সাথে সন্নিহিত ঢাকার ভাষার অনেকটা সাযুজ্য রয়েছে। শীতলক্ষ্যা - ব্রক্ষ্মপুত্র নদের গতিপ্রকৃতি  পাদদেশে বন্দর মানুষের আচার-আচরণ, খাদ্যাভ্যাস, ভাষা, সংস্কৃতিতে ব্যাপক প্রভাব ফেলেছে বলে বিশেষজ্ঞরা মনে করেন।

এই এলাকার ইতিহাস পর্যালোচনায় দেখা যায় যে বন্দর উপজেলার সভ্যতা বহুপ্রাচীন। এই এলাকায় প্রাপ্ত প্রত্নতাত্ত্বিক নিদর্শন প্রাচীন সভ্যতার বাহক হিসেবে উদীয়মান। সাংস্কৃতিক পরিমন্ডলে বন্দর অবদানও অনস্বীকার্য।  নারায়ণগঞ্জ জেলার পূর্বাঞ্চলের ১৯৭১ সালের সর্বশেষ মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতি বিজরিত সমরক্ষেত্র ঐতিহ্য বহণ করে বন্দর উপজেলায়।

 

যেসব সরকারী সংস্কৃতি বিষয়ক সংস্থা বন্দর কাজ করছে সেগুলো হলোঃ

    * উপজেলা শিল্পকলা একাডেমী, বন্দর
    * সরকারী গণ গ্রন্থাগার, বন্দর

  •